তপু বর্মণের গোলে শীর্ষে আবাহনী

খেলা

ক্রীড়া ডেস্ক.

আগের ম্যাচে জীবনের হ্যাটট্রিকে রহমতগঞ্জকে বড় ব্যবধানে হারিয়েছিল ঢাকা আবাহনী। জয়ের ধারা সচল রাখলো তারা বৃহস্পতিবারের ম্যাচের। তপু বর্মণের একমাত্র লক্ষ্যভেদে বিজেএমসিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। টানা তৃতীয় জয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলের শীর্ষেও বসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

৫ ম্যাচ শেষে আবাহনী ৪ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে বসেছে টেবিলের শীর্ষে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বসুন্ধরা কিংস অবশ্য দুই ম্যাচ কম খেলেছে। ৩ ম্যাচের সবকটিতে জিতে ৯ পয়েন্ট নিয়ে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে প্রিমিয়ার লিগে প্রথমবার খেলতে নামা বসুন্ধরা কিংস।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিজেএমসির বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকে আক্রমণ চালায় আবাহনী। সপ্তম মিনিটে হাইতির ফরোয়ার্ড কেরভেন্স বেরফোর্টের পাসে বক্সের ৬ গজের মধ্যে বল পেয়ে আরেক ফরোয়ার্ড রুবেল মিয়া বারের ওপর দিয়ে মারলে সুযোগ নষ্ট হয় তাদের।

মিনিট চারেক পর ডিফেন্ডার ওয়ালী ফয়সালের কর্নারে বিজেএমসির ডিফেন্ডার জহিরুল ইসলামের হেড সাইড বারে লাগলে একটুর জন্য হয়নি আত্মঘাতী গোল। খানিক পর ওই ওয়ালী ফয়সালেরই কর্নার ফিস্ট করে ফেরান গোলরক্ষক সোহাগ হোসেন।

তবে ২৬ মিনিটে আবাহনী সফল হয়। ওয়ালী ফয়সালের ফ্রি কিক থেকে ডিফেন্ডার তপু বর্মণের হেড জালে জড়ালে আনন্দে মাতে আবাহনী। শেষ পর্যন্ত তার গোলটিই আবাহনীকে এনে দিয়েছে পুরো ৩ পয়েন্ট।

তবে দ্বিতীয়ার্ধে বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছে আবাহনীকে। ৫৪ মিনিটে ম্যাচে ফেরার দারুণ সুযোগ নষ্ট করে বিজেএমসি। ফরোয়ার্ড আব্দুল্লাহ আল মামুনের কর্নারে ক্যামেরুনের ডিফেন্ডার বেইবেক ফমবাগনের হেড ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়।

ম্যাচ শেষে আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিত দাশ রুপু দলের পারফরম্যান্সে পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারেননি। তিনি বলেছেন, ‘সানডে-রুবেল মিয়া সহ অন্যরা যেভাবে গোল মিস করেছে, তাতে আমাদের আরও বড় ব্যবধানে জেতা উচিত ছিল। কিন্তু তা হয়নি।’

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *